June 19, 2024 12:37 pm

৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

June 19, 2024 12:37 pm

৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

School Inspector Sacked: স্বামীর পেনশন দ্বিতীয় স্ত্রীকে; সন্তান অসুস্থ জেনেও বদলিতে না , ২ ডিআইকে অপসারণের নির্দেশ হাইকোর্টের

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp
yellow and blue tennis racket

অর্ণবাংশু নিয়োগী: একই দিনে ২ জেলার স্কুল পরির্দশককে অপসারণের নির্দেশ দিলেন বিচারপতি অভিজিত্ গঙ্গোপাধ্যায়। এদের একজন দক্ষিণ ২৪ পরগনার এবং অন্যজন মুর্শিদাবাদের। দুজনের বিরুদ্ধেই গুরুতর মামলা ওঠে হাইকোর্টে।

মুর্শিদাবাদ জেলা স্কুল পরির্দশককে ২ সপ্তাহের মধ্যে অপসারণের নির্দেশ দিলেন বিচারপতি অভিজিত্ গঙ্গোপাধ্যায়। কেন এমন কড়া নির্দেশ? আদালতের মন্তব্য, উনি অন্য দফতরে চাকরি করতে পারেন কিন্তু স্কুল পরির্দেশের পদে তিনি থাকতে পারবেন না। নদিয়ার কৃষ্ণনগরের বাসিন্দা এক শিক্ষিকা তাঁর বদলি নিয়ে আদালতে মামলা করেন। তিনি আবেদন করেছিলেন তাঁর সন্তান বিরল রোগে আক্রান্ত। স্বামীও অনেকটাই পঙ্গু। তাঁর স্কুলে যেতে গেলে একশো কিলোমিটারের বেশি পথ পাড়ি দিতে হয়। তাই তাকে বাড়ির কাছে কোনও একটি স্কুলে বদলি করা হোক। সেই আবেদন মঞ্জুর করেনি জেলা স্কুল দফতর। তারপরেই ওই শিক্ষিকা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন।

আরও পড়ুন- রাজ্যে সরকারের মাথায় হাত, ভুয়ো বিয়ে দেখিয়েই সরকারের কয়েকশো কোটি টাকা হাতিয়ে নিল দালালরা

ওই মামলায় আদালত ওই শিক্ষিকার স্কুলে ছাত্র-শিক্ষক অনুপাত জানাতে নির্দেশ দেন। কিন্তু স্কুল পরির্দশক যে রিপোট দেন তাতে আদালত ক্ষুব্ধ। ওই রিপোর্টে শিক্ষকদের সঙ্গে প্যারাটিচাদেরও জুড়ে দেন ডিআই। অথচ সরকারি নির্দেশ অনুযায়ী শিক্ষকদের সঙ্গে প্যারাটিচারদের যোগ করার নিয়ম নেই। বিচারপতি গঙ্গোপাধ্য়ায় নির্দেশ দেন আগামী ২ সপ্তাহের মধ্যে ওই ডিআইকে অপসারণ করতে হবে। পাশাপাশি শিক্ষিকার বদলি নিয়ে বিচারপতি বলেন, স্কুল পরির্দশক সব জেনেও কীভাবে বদলির বিরোধিতা করেন?

অন্যদিকে, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলা স্কুল পরির্দেশকের উপরে ক্ষুব্ধ বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। তাঁকেও অপসারণের নির্দেশ দেন বিচারপতি। তাঁর পর্যবেক্ষণ, এতে বাকী ডিআইদের কাছে একটা বার্তা যাবে। এটা ডিআইএর ভুল নয়, ওভার স্মার্টনেস।
কেন এমন নির্দেশ?  ২০১৯ সালে দক্ষিণ ২৪ পরগনায় রবীন্দ্রনাথ হালদার নামে এক প্রাথমিক শিক্ষকের মৃত্যু হয়। তাঁর প্রথম স্ত্রী কুসুম হালদার এবং দ্বিতীয় স্ত্রী সুজাতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এক্ষেত্র আগেই দ্বিতীয় বিবাহ বৈধ নয় বলে জানিয়ে দিয়েছে আদালত। এদিকে ওই শিক্ষকের পেনশন প্রথম স্ত্রীর পরিবর্তে দ্বিতীয় স্ত্রীকে দেন ডিআই সুজিত হাইত। এনিয়ে প্রশ্ন তোলেন কুসুম হালদারের। আদালতের রায় অনুযায়ী এক্ষেত্রে ডিআইকে সরিয়ে প্রিন্সিপ্যাল সেক্রেটারি অন্য কাউকে ওই পদে বহাল করবেন। তবে চাকরি বাতিল নয়।

(দেশ, দুনিয়া, রাজ্য, কলকাতা, বিনোদন, খেলা, লাইফস্টাইল স্বাস্থ্য, প্রযুক্তির টাটকা খবর, আপডেট এবং ভিডিয়ো পেতে ডাউনলোড-লাইক-ফলো-সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের AppFacebookWhatsapp ChannelX (Twitter)YoutubeInstagram পেজ-চ্যানেল)  


source

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp

Related News

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top