June 19, 2024 12:30 pm

৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

June 19, 2024 12:30 pm

৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

Sandesh Khali Abhishek Banerjee:হাই কোর্টে মুখ পুড়লো অভিষেকের।শেখ শাহজাহানের গ্রেফতারের উপর কোন স্থগিতাদেশ নেই জানিয়ে দিল প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp

No stay on Sheikh Shahjahan’s arrest CJ’s division bench dismisses Abhishek’s theory

দ্যা হোয়াইট বাংলা ডিজিটাল ডেস্ক: শেখ শাহজাহানের গ্রেপ্তারির উপর কলকাতা হাইকোর্টের কোন স্থগিতাদেশ নেই। তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের তত্ত্ব খারিজ করে স্পষ্ট করে দিল প্রধান বিচারপতি টি এস শিবজ্ঞানম ও বিচারপতি হিরণ্ময় ভট্টাচার্যর ডিভিশন বেঞ্চ। সন্দেশখালীর ঘটনায় দায়ের করা শত প্রণোদিত মামলার শুনানি ছিল সোমবার। সেই মামলায় বেঞ্চ স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে মূল অভিযুক্ত শেখ শাহজাহানের গ্রেফতারিতে আদালত কোনদিনও কোনরকম স্থগিতাদেশ দেয়নি।

রবিবার সংবাদ বাদ দমের সামনে বিস্ফোরক অভিযোগ করে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেন শেখ শাহজাহানকে সুরক্ষা দিয়েছে আদালত তার গ্রেফতারের উপর স্থগিতাদেশ রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এদিন আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন মামলায় নিযুক্ত আদালত বান্ধব জয়ন্ত নারায়ণ চট্টোপাধ্যায়। বিষয়টি শোনার পরই প্রধান বিচারপতি জানিয়ে দেন আদালত কোনদিনও কোনরকম স্থগিতাদেশ এ ব্যাপারে দেয়নি।

এছাড়াও এই মামলায় শেখ শাহজাহানকে যুক্ত করার জন্য সংবাদমাধ্যমে পাবলিক নোটিশ জারি করার নির্দেশ দিয়েছে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। এদিন মামলার শুনানিতে রাজ্যের তরফে এডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত দাবি করেন, ওই এলাকায় গত চার বছর ধরে যৌন নিগ্রহের মোট ৪৮ টি মামলা দায়ের হয়েছে। সেগুলির মধ্যে ৪৭ টি মামলায় ইতিমধ্যেই চার্জশিট দেওয়া হয়ে গিয়েছে বাকি মামলা গুলির তদন্ত চলছে। পাশাপাশি তিনি দাবি করেন গত ডিসেম্বর মাসের ১৮ তারিখ পর্যন্ত জমি কেড়ে নেওয়ার মোট সাতটি মামলা দায়ের হয়েছে। পরবর্তীতে আরো ২৪টি এই ধরনের এফ আই আর রুজু করেছে সন্দেশখালি থানার পুলিশ। বিষয়টি শোনার পরই উদ্বেগ প্রকাশ করেন প্রধান বিচারপতি। বলেন এটা খুব বিস্ময়কর যে চার বছর ধরে রাজ্য পুলিশ সবই জানতো। অথচ ব্যবস্থা নিতে চার বছর সময় লাগলো এছাড়াও প্রধান বিচারপতি বলেছেন এটা খুব আশ্চর্যের রাজ্য ।

ইতিমধ্যেই জমি ফেরতের প্রক্রিয়া শুরু করেছে এর দ্বারাই প্রমাণ হয় ওই এলাকায় আদিবাসীদের জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে তা সত্ত্বেও রাজ্য এতদিন ধরে চুপ করেছিল। পাশাপাশি এদের মামলার শুনানিতে আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা তীব্রেওয়াল দাবি করেন ওখানকার মহিলারা যারা নিগৃহীত হয়েছেন তারা পুলিশের কাছে অভিযোগ লিখতে যেতে ভয় পাচ্ছেন। এ ব্যাপারে প্রধান বিচারপতি আশ্বাস দিয়েছেন পরবর্তীতে রাজ্য লিগ্যাল সার্ভিসেস অথরিটির মাধ্যমে ক্যাম্প করে ওই নিগৃহীত মহিলাদের অভিযোগ শোনা হবে। পাশাপাশি এদিন আদালত বান্ধব জয়ন্ত নারায়ণ চট্টোপাধ্যায় কেও সন্দেশখালীর সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে একটি রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। আগামী চার তারিখ মামলার পরবর্তী শুনানি।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp

Related News

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top