May 26, 2024 7:56 am

১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

May 26, 2024 7:56 am

১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

Loksabha fight: TMC brigade politicalrally ঐতিহাসিক ব্রিগেড সমাবেশের র‍্যাম্পে মমতা!নজিরবিহীন প্রস্তুতি। রেকর্ড ভিড়ের আশায় বুক বেঁধেছে তৃণমূল

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp

Trinamool Congress is making innovative preparations to make the March 10 brigade rally a success. The Trinamool claims that something is being done in stage decoration which has never been done before in any political rally anywhere in West Bengal

রাজ্য

দ্যা হোয়াইট বাংলা ডিজিটাল ডেস্ক:

আগামী ১০ মার্চের ব্রিগেড সমাবেশ সফল করার জন্য অভিনব প্রস্তুতি নিচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস। মঞ্চ সজ্জ্যায় এমন কিছু করা হচ্ছে যা শুধু ব্রিগেড কেন, পশ্চিমবঙ্গের কোথাও কোনো রাজনৈতিক সমাবেশে এর আগে হয় নি বলেই দাবি তৃণমূলের।

লোকসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট ঘোষণার এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। সম্ভবতঃ এই মাসের ১৩ থেকে ১৫ই মার্চের মধ্যেই দিন ঘোষণা করে দেবে কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন। তার আগে রবিবারের ব্রিগেড সমাবেশ সফল করার জন্য দলীয় স্তরে একের পর এক পদক্ষেপ করা হচ্ছে। মাত্র ১৫ দিন আগে ‘জনগর্জন সভা’-র নামে ব্রিগেড সমাবেশের ডাক দিয়েছে তৃণমূল। লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রাখলে এই সময় এই সমাবেশের ডাক অনেককেই আশ্চর্য করেছে।

সাধারনত রাজনৈতিক দলগুলো ব্রিগেডে সমাবেশ করে হয় কোনো নির্বাচন ঘোষণার দুই থেকে তিন মাস আগে, বা নির্বাচন মিটে গেলে বিজয় উৎসব পালন করার জন্য। অথবা নির্দিষ্ট কোনো কর্মসূচি শেষ করে প্রকাশ্য সমাবেশ করার জন্য। এক্ষেত্রেও সমাবেশের ডাক দেওয়া হয় পাঁচ থেকে ছয় মাস আগে। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের অনেকটা আগে ১৯ জানুয়ারি ব্রিগেডে সমাবেশ করেছিলো তৃণমূল কংগ্রেস। ‘ইউনাইটেড ইন্ডিয়া’ ব্যানারে তৃণমূল কংগ্রেসের ডাকা সেই সভায় উপস্থিত হয়েছিলেন বিজেপি বিরোধী বিভিন্ন দলের একঝাঁক নেতা নেত্রী।

এবার অবশ্য রবিবারের এই সমাবেশে উপস্থিত থাকার জন্য অন্য কোন দলকে আনুষ্ঠানিকভাবে আমন্ত্রণ জানায় নি তৃণমূল কংগ্রেস। পাশাপাশি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর উদ্যোগে এই সময় ব্রিগেড সমাবেশের ডাক দেওয়াটাও যথেষ্ট অভিনব। তবে শুধু ডাক দেওয়াই নয়, সমাবেশের আয়োজনেও বেশকিছু অভিনব ব্যবস্থা নিচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস।

এই প্রথম দক্ষিণ ভারতের ধাঁচে মূল মঞ্চ থেকে একটা র‍্যাম্প তৈরি করা হচ্ছে। ৩৪০ ফুট লম্বা এই র‍্যাম্প মূল মঞ্চ থেকে সোজা সামনের দিকে এগিয়ে গিয়েছে। প্রায় ২০০ ফুট পরে র‍্যাম্পএর ডানদিকে ও বাম দিকে দুটো প্রায় ১৫০ ফুটের উইংস করা হয়েছে। এই র‍্যাম্প দিয়ে হেঁটে গিয়ে সভায় উপস্থিত সাধারণ কর্মি সমর্থকদের একেবারে কাছে পৌঁছে যাওয়ার জন্যেই এই ব্যবস্থা। সূত্রের খবর, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়া আরও কয়েকজন এই র‍্যাম্প ধরে হেঁটে কর্মি সমর্থকদের সঙ্গে মিলিত হবেন। তবে দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় র‍্যাম্প এ হাঁটবেন কি না সেটা তাঁর উপরেই ছেড়ে রাখা হয়েছে। ৭২ ফুট বাই ২০ ফুটের মূল যে মঞ্চ সেটা দুই ভাগে বিভক্ত।

এই মঞ্চে থাকবেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সেকেন্ড ইন কমান্ড অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, লোকসভা ও রাজ্যসভার সাংসদরা। থাকবেন দলের একেবারে শীর্ষ নেতৃত্ব। এছাড়া কিছু বিশিষ্ট জনকেও (টিকিট পেতে পারে এমন)এই মূল মঞ্চে দেখা যেতে পারে। মূল মঞ্চের দুই পাশে ৬৮/২৪ ফুটের দুটি মঞ্চে থাকবেন রাজ্য বিধানসভার দলীয় বিধায়কেরা এবং পশ্চিমবঙ্গের বাইরে মেঘালয়, অসম, ত্রিপুরা বা উত্তর প্রদেশ এর দলীয় নেতৃবৃন্দ। র‍্যাম্পসহ সবকটি মঞ্চ মিলিয়ে প্রায় ৬০০ জন নেতৃত্ব থাকবেন, যা নজিরবিহীন ঘটনা ঘুরতে চলেছে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp

Related News

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top