June 18, 2024 11:03 am

৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

June 18, 2024 11:03 am

৪ঠা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

Justice Abhijeet Ganguly হাওড়া ডেল্ট জুটমিলের EPF প্রতারণা মামলায় বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় নির্দেশ বহাল রাখল ডিভিশন বেঞ্চ

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp

The division bench upheld Justice Abhijit Gangopadhyay’s order in the Howrah Delta Jutmill Provident Fund fraud case.

রাজ্য

দ্যা হোয়াইট বাংলা ডিজিটাল ডেস্ক

বৃহস্পতিবার রাত ১০টা থেকে ১০.৪৭ পর্যন্ত মামলা শুনেছিলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। হেয়ার স্ট্রিট থানার পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছিলেন হাওড়া ডেল্টা জুট মিলে পাঁচ জন ডিরেক্টরের বিরুদ্ধে এফআইআর রুজু করে সেই এফ আই আর এর কপি ইডি তদন্তকারী আধিকারিকদের হাতে তুলে দেওয়ার। সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে বিচারপতি সূর্য প্রকাশ কেসরওয়ানি ও বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চে মামলা দায়ের করে জুট মিল কতৃপক্ষ। সেদিন ডিভিশন বেঞ্চ জুটমিল কর্তৃপক্ষের আবেদন খারিজ করে দিল।

পাশাপাশি বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে মামলাকারিদের পক্ষের আইনজীবী জানান হেয়ার স্ট্রিট থানা এফআইআর দায়ের করছে না। তাৎক্ষণিক বিচারপতি নির্দেশ দেন হেয়ার স্ট্রিট থানাকে সশরীরে হাজিরা দিতে হবে এজলাসে। এই নির্দেশ পাওয়ার সাথে সাথেইআদালতে হাজিরা দিলেন হেয়ার স্ট্রিট থানার ওসি সুমিত দাশগুপ্ত। ওসি আগেই fir দায়ের করে দেওয়ায় তাঁকে সাধুবাদ জানান বিচারপতি। বিচারপতি ওসিকে বলেন: পুলিশ তর কাজ করে দেওয়ায় আদালত খুশি। আমার পুলিসের উপর সম্পূর্ণ আস্থা আছে। এককভাবে কোন পুলিশ খারাপ নয়। পুলিশ কে যদি কাজ করতে দেয়া হয় তার থেকে ভালো কিছু হতে পারে না। দরিদ্র শ্রমিকদের প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা নিয়ে প্রতারণা হয়েছে। পুলিশ শুধু একটা এফ আই আর করে দিলে ইডি তদন্ত শুরু করতে পারে। যদি গরিব মানুষগুলোর কোন উপকার হয় এটাই তো আমাদের কাজ।

অন্য দিকে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাসে প্রাথমিক রিপোর্ট জমা দিল SFIO। হেয়ার স্ট্রিট থানার OC কে আদালতে তলব করতেই SFIO অভিযোগের ভিত্তিতে FIR দায়ের করল পুলিশ। SFIO আইনজীবীকে WHATSAPP করে জানিয়ে দিল থানা। FIR দায়ের হতেই ইডিকে তদন্ত শুরুর নির্দেশ বিচারপতির।

বিচারপতির পর্যবেক্ষণ আশা করি SFIO তাদের কাজের সুনামের উপরে সুবিচার করবেন। এবং যথাযথ তদন্ত করে আদালতে রিপোর্ট জমা দেবে।

আদালতে হাজিরা দিলেন হেয়ার স্ট্রিট থানার ওসি সুমিত দাশগুপ্ত। ওসি আগেই fir দায়ের করে দেওয়ায় তাঁকে সাধুবাদ জানান বিচারপতি।

বিচারপতি ওসিকে বলেন: পুলিশ তর কাজ করে দেওয়ায় আদালত খুশি। আমার পুলিসের উপর সম্পূর্ণ আস্থা আছে। এককভাবে কোন পুলিশ খারাপ নয়। পুলিশ কে যদি কাজ করতে দেয়া হয় তার থেকে ভালো কিছু হতে পারে না। দরিদ্র শ্রমিকদের প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা নিয়ে প্রতারণা হয়েছে। পুলিশ শুধু একটা এফ আই আর করে দিলে ইডি তদন্ত শুরু করতে পারে। যদি গরিব মানুষগুলোর কোন উপকার হয় এটাই তো আমাদের কাজ।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp

Related News

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top