June 19, 2024 1:01 am

৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

June 19, 2024 1:01 am

৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

Bangladesh export potential of small and medium industries: ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের রপ্তানি সম্ভাবনা বাড়াতে উদ্যোগী হতে হবে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp

Speaker should take initiative to increase the export potential of small and medium industries of Bangladesh. Shirin Sharmin Chowdhury.

বাংলাদেশ

দ্যা হোয়াইট বাংলা ডিজিটাল ডেস্ক:

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের রপ্তানির ক্ষেত্রে উদ্যোগ বাড়ানোর কথা জানালেন স্পিকার ডক্টর শিরিন শারমিন চৌধুরী। তিনি বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ সারাবিশ্বে দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতিতে পরিণত হয়েছে এবং তিনি এসএমই শিল্পের উন্নয়নেও নিরলস কাজ করে চলেছেন। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। তাই সবাইকে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের রপ্তানি সক্ষমতা বৃদ্ধিতে উদ্যোগী হতে হবে।

রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ আয়োজিত ‘ইমপ্রুভিং এক্সপোর্ট ক্যাপাবিলিটিস অব এসএমই’স : সাকসিডিং গ্লোবালি আপন এলডিসি গ্রাজুয়েশন’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে স্পিকার এ কথা বলেন। সেমিনারে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বাংলাদেশে নিযুক্ত কানাডার হাইকমিশনার লিলি নিকলস এবং বাংলাদেশে নিযুক্ত সৌদি আরবের অ্যাম্বাসেডর ইসা ইউসুফ আলদুহাইলান বক্তব্য রাখেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ট্রেড ও ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান মো. ফাইজুল ইসলাম।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ বাংলাদেশে ব্যবসা-বাণিজ্য, বিনিয়োগ এবং শিল্পায়নের সুবিধার্থে কাজ করে যাচ্ছে এবং দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। তিনি বলেন, ডিসিসিআই’র উদ্যোগে এসএমই’র সক্ষমতা বৃদ্ধি বিষয়ক সেমিনার খুবই সময়োপযোগী, এই সেমিনারের মাধ্যমে এসএমই সেক্টরের আরও অনেক সম্ভাবনা খুঁজে বের করতে হবে।

স্পিকার বলেন, বাংলাদেশের জিডিপিতে এসএমই সেক্টরের অবদান প্রায় ত্রিশ শতাংশ, যা প্রশংসনীয়। তিনি বলেন, এই সেক্টরের রপ্তানি সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য সঠিক ও কার্যকর নীতি গ্রহণের পাশাপাশি অর্থায়ন ও অবকাঠামোগত উন্নয়নেও ব্যবস্থা নিতে হবে।

তিনি বলেন, এসএমই সেক্টরের সব ধরনের প্রতিবন্ধকতা নিরসনের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখার পথ সুগম করতে হবে। এসময় তিনি ডিসিসিআই’র সফলতা কামনা করেন এবং প্রতিষ্ঠানটি দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসারে গতিশীলতা আনবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

স্পিকার এসময় এধরনের সেমিনার আয়োজনের জন্য ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজকে ধন্যবাদ জানান। ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের পক্ষ থেকে স্পিকারকে শুভেচ্ছা স্মারক প্রদান করেন ব্যারিস্টার মো. সমীর সাত্তার।

ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ সভাপতি ব্যারিস্টার মো. সমীর সাত্তারের সভাপতিত্বে সেমিনারে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অন ইকোনোমিক মডেলিংয়ের নির্বাহী পরিচালক ড. সেলিম রায়হান। সেমিনারে বিষয়ভিত্তিক আলোচনা করেন তরঙ্গ’র সিইও কোহিনুর ইয়াসমিন, পিপলস লেদার ইন্ডাস্ট্রির ব্যবস্থাপন পরিচালক রেজবিন বেগম, বেঙ্গল মিট প্রসেসিং লিমিটেডের সিইও এ এফ এম আসি্ফ‌ বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক মো. কবির আহমেদ এবং এক্সপোর্ট প্রোমোশন ব্যুরোর ভাইস চেয়ারম্যান এ এইচ এম আহসান।

সেমিনারে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের প্রতিনিধি, সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, উদ্যোক্তা, আমন্ত্রিত অতিথি, বিভিন্ন গণ্যমান্য ব্যক্তিসহ গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp

Related News

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top