June 19, 2024 12:50 am

৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

June 19, 2024 12:50 am

৫ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রাতঃভ্রমনে বেরিয়ে তির্যক মন্তব্য দিলীপ ঘোষের

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp
#dilipghosh#comments#

Dilip Ghosh’s comments on various issues

রাজ্য

দ্যা হোয়াইট বাংলা ডিজিটাল ডেস্ক : শুক্রবার সকালে নিউটাউন ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমনে আসেন বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ। সেখানে বিভিন্ন রাজনৈতিক ইস্যু নিয়ে মুখ খুললেন তিনি। প্রথমেই তাঁকে প্রশ্ন করা হয় পুর নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় মন্ত্রী সুজিত বোস, তাপস রায় প্রাক্তন পুর প্রধান সুবোধ চক্রবর্তীর বাড়িতে ইডিহানা বিষয়ে। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন- “স্লোগান শুনতাম খেলা হবে খেলা হবে। কবে হবে। এখন খেলা শুরু হয়েছে। খেলা চলবে এখন এই যে দুর্নীতি রন্ধে রন্ধ্রে ছেয়ে গেছে পশ্চিমবাংলায় যারা করেছে তারা তো ছাড়া পাবে না। শুরু হয়েছে চলতে থাকবে। এখন দুর্নীতি মুক্ত বাংলা করার জন্য যে লড়াই চলছে।”

সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী বলেন,সবাইকেই কি চাকরি করতে হবে এর কোন মানে আছে সবাই চাকরি করলে ক্ষেত মজুরের কাজ করবে কে? এই প্রশ্নে বিজেপি বিধায়ক দিলীপ ঘোষ বলেন- চাকরি করা আমরা মনে করি না সবার চাকরি করার দরকার আছে কিন্তু তার উপার্জনের ব্যবস্থা করতে হবে ক্ষেতমজুর যদি হয় ও সে যেন ক্ষেতি করে তার সংসার চালাতে পারে পড়াশোনা করতে পারে সেটা হোক সেটা হতে হবে সেটা প্রধানমন্ত্রী কৃষকদের বছরে ৬০০০ টাকা দিচ্ছে সেটা নিতে দিচ্ছেন না ওনারা হয় সে ব্যবস্থা করে দিক চাষ না হলে খাবে কি সাড়ে তিন বছর ফ্রিতে আমরা রেশন দিচ্ছি কৃষকদের জন্য আরো পাঁচ বছর দেবেন প্রধানমন্ত্রী বলেছেন কৃষকদের জন্য কিন্তু কৃষকদের অবস্থা খারাপ এখানে কেন্দ্র সরকারি প্রকল্প এখানে এমপ্লিমেন্ট হচ্ছে না ফলে কৃষকরা কষ্টে আছে মজুর কেন চাষী সাভিমানের সাথে নিজের জমি চাষ করে বেঁচে থাকবে।

রাজ্য সরকার প্রকৃতপক্ষে চাকরি দিচ্ছে তাই সকলের লোভ হচ্ছে আমরাও চাকরি পাবো আগে লাইনে দাঁড়ান তবেই তো চাকরির টিকিট মিলবে বলেন মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী। তাঁর এই কথা প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বিলেন – চাকরি পাচ্ছে উনি কোথায় থাকে পাকিস্তানে থাকেন ধর্মতলায় যান না। রাস্তার উপরে বসে আছে ছেলেমেয়েরা পাস করে, কোথায় চাকরি দিয়েছেন? চাকরি যদি পেয়ে থাকে তো দু চারজন তাদের ছেলে মেয়েরাই পেয়েছেন।

কলকাতা পুলিশের আওতায় আসার পরেই ভাঙ্গরে বিক্ষোভ। থানার সামনে বিক্ষোভ ভাঙ্গরের জমি ও পরিবেশ রক্ষা কমিটির- এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষ বলেন- ঝামেলা বিক্ষোভ চলছে সব জায়গায়। পশ্চিমবাংলা এখন বিক্ষোভ রাজ্য হয়ে গেছে। এখানে জায়গায় জায়গায় বিক্ষোভ রাস্তাঘাটে কলে জল নেই, রাস্তা নেই বিক্ষোভ চলছে। বিদ্যুৎ নেই বিক্ষোভ চলছে। সব জায়গায় কারণ কিছুই কাজ হয় না ডেভেলপমেন্টের মানুষের মনে ক্ষোভ মানুষ ভয়ে আছে এত বিরোধ করা ছাড়া কোন রাস্তা নেই।

মদের গ্লাস নিয়ে প্রকাশ্যে নাচানাচি তৃণমূল কর্মীদের বুথ সভাপতি সহ পানিহাটির ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার ঘটনা প্রসঙ্গে বিজেপি বিধায়ক দিলীপ ঘোষ বলেন, এসব নতুন কিছু না। তৃণমূলে ওরকমই নেতা হয় যারা এই মদ মাতাল গুন্ডা বদমাশ দুর্নীতিবাজ হবে আর তাদের অবস্থা দেখুন না চারিদিকে রোজ ঘটনা আসছে।

Facebook
Twitter
LinkedIn
Pinterest
Pocket
WhatsApp

Related News

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top